Total Care BD

Best Caring Website of Bangladesh

ক্যান্সারের জন্য দায়ী যে সব খাবার (Foods which cause Cancer)!!!

শেয়ার করুন

শরীরের এক গুচ্ছ কোষ যখন কোন নিয়ম না মেনে ইচ্ছে মত বিভাজিত হতে থাকে তার থেকেই  Cancer বা কর্কটরোগ এর সুত্রপাত যা বিশ্বব্যাপী মরণব্যাধি হিসেবেই পরিচিতি। Cancer হবার সব কারন এখনও নিশ্চিত করে বলা না গেলেও সাধারণ কিছ‍ু কারণ খুঁজে পেয়েছেন গবেষকরা। এরমধ্যে বিভিন্ন ধরনের খাবার গ্রহণের ক্ষেত্রেও সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তারা।

cancer causing food

ক্যান্সারের জন্য দায়ী যে সব খাবারঃ(cancer causing food)

প্রক্রিয়াজাতকরণ মাংস (Processed Meat)
মাংস প্রক্রিয়াজাত করে দীর্ঘদিন সংরক্ষণ করতে বিভিন্ন ধরনের Preservatives মেশানো হয়ে থাকে যা আপাত দৃষ্টিতে ক্ষতিকর ।  এসব খাদ্য Cancer সহ বিভিন্ন রোগের জন্য দায়ী হতে পারে।

রেডিমেড খাবার (Ready-made Food) 
বাস্তবিক অর্থে বেশির ভাগ টিনজাত (Canned) খাদ্য স্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকি হতে পারে যা Cancer এর মত পরিনতি নিয়ে আসতে পারে । এসব খাদ্য বিশপেনল-এ বা বিপিএ(BPA)  দিয়ে প্রস্তুত করা হয়। রেডিমেড টমেটো বা টিনজাত বা প্যাকেটজাত টমেটোও এর আওতায় রয়েছে।
২০১৩ সালে জাতীয় বিজ্ঞান একাডেমির এক গবেষণা দেখা যায়, বিপিএ শরীরে ব্যাপক ক্ষতি সাধন করে। যা ব্রেনেও প্রভাব পড়ে।

নন-অর্গ্যানিক ফল (Non-organic fruit)
বিভিন্ন ধরনের নন-অর্গ্যানিক ফল-ফলাদিতে বিশেষ করে ‍Atragin, থায়োডিকার্ব এবং অর্গানাপসফেটসে উচ্চ Nitrogen থাকে। কীটনাশক বা রাসায়নিক সার হিসেবে ব্যবহার হওয়া ইউরিয়াও এতে প্রয়োগ করা হয় হয়। যেগুলো Cancer এর মতো রোগের কারণ হতে পারে।
এছাড়া নীরব ঘাতক নন-অর্গানিক বা অজৈব ফল প্রজনন ক্ষমতা হ্রাস করে ফেলে।

মাইক্রোওয়েভ পপকর্ন (Microwave Popcorn)
ভুট্টার তৈরি খই পপকর্ন যে কখনও মরণব্যাধি ক্যান্সারের কারণ হতে পারে তা কোনোদিন হয়তো কল্পনাই করেন নি কেউ।
পপকর্ন রাখা প্যাকেট বা ব্যাগে থাকা বিষাক্ত পারফ্লোরো অক্টানয়িক অ্যাসিড মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর প্রভাব ফেলতে পারে যা কিনা Cancer এর সুচনা ঘটাতে পারে।

চাষ করা স্যালমন (Cultured Salmon)
মাছ স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী হলেও কিন্তু এই মাছটি ত্যাগ করা উচিত। কিন্তু দুঃখের বিষয় হলেও সত্য যুক্তরাষ্ট্রে ৬০ ভাগেরও বেশি চাষের স্যালমনের ভোক্তা রয়েছে।
চাষের এই মাছকে কৃত্রিম খাদ্য ও রাসায়নিক, জীবাণুমুক্ত, কীটনাশক এবং অন্যান্য খাদ্য দেওয়া হয়। যা Cancer সৃষ্টির জন্য দায়ী।

খাদ্যে উচ্চ লবণাক্ততা বা স্মোকিং ফুড (Highly salted  & Smocked Food)

পুড়িয়ে অথবা ভেজে তৈরি করা খাবার মাংসের কাবাব কিংবা বাদাম স্মোকিং ফুড হিসেবে পরিচিত। মাংসের তৈরি খাবার যেমন বেকন (Beacon) , সসেজ, বোলোগনা এবং সালামিতে প্রচুর চর্বি ও লবণ থাকে।
এসব খাবার Colo-rectal Cancer এবং Stomach Cancer এর ঝুঁকি বাড়ায়।

হাইড্রোজেনেটেড অয়েল (Hydrogenated Oil)
সব ধরনের উদ্ভিজ তেলেই উচ্চ মাত্রার ওমেগা-৬ ফ্যাটি এসিড থাকে। ওমেগা-৬ স্বাস্থ্যের জন্য নানা-সমস্যা ও রোগসহ নানা ধরনের Cancer বাড়ায়। বিশেষ করে Skin Cancer সৃষ্টিতে বড় ভূমিকা রাখে।

অন্যদিকে হাইড্রোজেনেটেড অয়েল বিভিন্ন ধরনের খাদ্য সংরক্ষণে ব্যবহৃত হয়। এই তেল শরীরের Cell গঠনে প্রভাব ফেলে, যা Cancer সাথে সম্পৃক্ত।

পরিশোধিত চিনি (Refined Sugar)
পরিশোধিত চিনির ঝুঁকি মারাত্মক। এই চিনি স্থূলতার জন্য দায়ী। যুক্তরাজ্যে ৬০ শতাংশেরও বেশি মানুষ স্থূলতা বা অতিরিক্ত ওজন সমস্যায় ভুগছে।
পরিশোধিত চিনি নানা ধরনের স্বাস্থ্যগত সমস্যা ছাড়াও এর দ্বারা নানা খাদ্য Cancer Cell  এর জন্ম দিচ্ছে। চিনির তৈরি বিভিন্ন পানীয়ও শরীরের জন্য ক্ষতিকর।

কৃত্রিম চিনি (Artificial Sugar)
অনেকে ডায়াবেটিস আক্রান্ত রোগী খাবারে চিনির বিকল্প হিসেবে আর্টিফিসিয়াল সুইটেনার্স বা কৃত্রিম চিনি খান। কিন্তু গবেষণায় দেখা যায়, এই কৃত্রিম চিনি তৈরিতে ব্যবহৃত হয় সোডা ও কফি সুইটেনার্স।

বাস্তবিক অর্থে এ কৃত্রিম চিনি রক্তে সুগার নিয়ন্ত্রণেও প্রভাব ফেলে। এতে ডায়েবেটিস বৃদ্ধিসহ Cancer ও হতে পারে।

প্রক্রিয়াজাত সাদা আটা (Processed White Flour)

অ‍াটা শর্করা জাতীয় খাবার। যা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। কিন্তু প্রক্রিয়াজাতকরণ সাদা আটা খুবই অপকারী।
রিফাইনের ফলে এই আটা তার সাধারণ পুষ্টিগুণাগুণ হারিয়ে ফেলে। আটার মিল গুলো তা সংরক্ষণের জন্য বর্তমানে ক্লোরাইন গ্যাসে নামে একটি কেমিক্যাল ব্যবহার করছে যা খুব ক্ষতিকর এবং Cancer এর জন্য দায়ী ।

রেড মিট (Red Meat)
মাংস অনেকেরই প্রিয়। কিন্তু লাল মাংস স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ক্ষতিকর। হতে পারে প্রাণঘাতী ক্যান্সারও। তাই বিজ্ঞানীরা বলছেন, অধিক পরিমাণে লাল মাংস ভোজন ত্যাগ করতে হবে।

এক গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, লাল মাংসে এন-নিট্রোসোডিয়েথিলামিন নামে এক ধরনের রাসায়নিক পদার্থ থাকে। এ‌ পদার্থের মাত্র দশমিক ০০০০৭৫ শতাংশ গ্রাম-ই শরীরে ক্যান্সার উৎপাদনের জন্য যথেষ্ট।

এছাড়া  লাল মাংসে থাকা উচ্চমাত্রার ক্ষতিকর কোলেস্টরল অন্ত্র ও পাকস্থলীর ক্যান্সার সংক্রমণেই কাজ করে না, এটি ভয়ংকরভাবে শরীরের বিভিন্ন অঙ্গে ক্যান্সার ছড়িয়ে দেয়।

অ্যালকোহল (Alcohol)
অতিমাত্রায় মদ্যপানের (অ্যালকোহল) কারণে মানুষের ত্বকের ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বাড়ে।

যুক্তরাজ্যের এক গবেষণায় বিজ্ঞানীরা জানান, মাত্রাতিরিক্ত অ্যালকোহল সেবন করলে শরীরে এমন এক ধরনের প্রবণতা সৃষ্টি হয়, যা মানবদেহ সূর্যের সংস্পর্শে এলে ত্বকের ওপর অতিবেগুনি রশ্মির প্রভাব কয়েকগুণ বেড়ে যায়।

তারা বলেন, Ethanol মানবদেহে প্রবেশ করে এক ধরনের তেজষ্ক্রিয়তা বা প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করে যা ত্বককে অতিবেগুনি রশ্মির প্রতি আরো সংবেদনশীল করে তোলে।

আর এই সময় মদ্যপায়ীরা সূর্যের আলোর কাছাকাছি গেলে এবং সানস্ক্রিনের মতো দেহকে সূর্য থেকে রক্ষার কোনো ব্যবস্থা না নিলে কয়েকগুণ বেশি মাত্রায় অতিবেগুনি রশ্মির ক্ষতির শিকার হয়। অ্যালকোহলের মাত্রা বেশি হলে Cancer এর  ঝুঁকি বাড়ে।

তাই সতর্ক থাকুন কি খাচ্ছেন খেয়াল রাখুন…সাময়িক ভাল লাগাকে গুরুত্ব দিয়ে বড় ভুল করবেন না। আপনাদের সুস্থ থাকাই আমাদের আনন্দিত করবে।

আর পোষ্টটি ভালো লাগলে নিচের শেয়ার বাটন থেকে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

you can read more at this site http://www.naturalnews.com/039970_cancer_junk_food_carcinogens.html

শেয়ার করুন
Total Care BD © 2016